অ্যালোভেরা বা ঘৃতকুমারী গাছের অবিশ্বাস্য যত গুণ!

অ্যালোভেরা বা ঘৃতকুমারী গাছের অবিশ্বাস্য যত গুণ! অ্যালোভেরা বা ঘৃতকুমারী একটি ভেষজ উদ্ভিদ।যার উপকার বলে শেষ করার মত নয়।যদিও এটি আরব উপুমহাদেশের বালুচরের উদ্‌ভিদ।কিন্তু এটি মাটিতেও ফলানো সম্ভব।এর গুণাগুণের কারনে বিশ্বের সব দেশেই এর চাষ হচ্ছে।


রুপ চর্চা

প্রাচীনকাল থেকেইর রুপচর্‌চার কাজে অ্যালোভেরার ব্যাবহার হয়ে আসছে।রোদে পোড়া ত্‌বকের জন্য অ্যালোভেরার নির্‌যাস বিশেষভাবে উপকারী।স্কিনে এ নির্‌যাস লাগিয়ে রোদে গেলে রোদের অতি বেগুনী রশ্মী থেকে অনেকটাই পার পাওয়আ যায়।তা ছাড়া নিয়মিতভাবে ব্যাবহারে রুক্ষ ত্‌বকের খেয়াল রেখে মসৃণ করে তুলবে।স্কিনের বিভিন্ন রকম জীবানু সংক্রান্ত সংক্রমণ ও ক্ষতস্থানের ক্ষতি সারিয়ে তোলার জন্যও এর জুড়ি মেলা ভার।

দাঁত ও দাঁতের মাড়ির উপকার
দাত ও দাতের মাড়ি সমস্যার জন্য়ও অ্যালোভেরা সমান ঊপোকা্রী।দাতের ফাকে ব্যা্কটেরিয়া দমনে অনেক সময় টুথপেস্ট থেকেও বেশি উজপকারী অ্যালোভেরা।তা ছাড়া দাত শিরশির অনুভব কিংবা দাতের ব্যাথার ঔষধ হিসেবে অ্যালোভেরা ব্যাবহার করা হয়।


ক্যানসার থেকে মুক্তিঃ

নিয়মিতভাবে অ্যালোভেরার জুস পান করে পেটের অসুখ ও কোষ্ঠকাঠিন্যের মত রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।তা ছাড়াও শরীরের ক্ষারত্‌ব কমানো ,সুস্থ লিভা্র, হৃদরোগ,হজমশক্তি ও স্তন ক্যানসারের বিরুদ্ধে শক্তভাবে লড়াই করে।আর প্রতিদিন সকালে এক গ্লাস অ্যালোভেরার জুস এক সাধারন দিনকে অসাধারনভাবে উপস্থাপন করতে সাহায্য করে।

কোষ্ঠকাঠিন্য দূরঃ
প্রতিদিনের জীবনে অ্যালোভেরা ব্যাবহার করতে পারেন বিভিন্নভাবে ।প্রতিদিন সকাল ও সন্ধাবেলায় আধ কাপ অ্যালোভেরার রসের সঙ্গে একটুখানি লবন মিশিয়ে পান করলে পরিপাক প্রক্রিয়া সহজ হয়।ফলে দেহের পরিপাকতন্ত্র সতেজ থাকে।এবং কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয়।

আরও পড়ুনঃ এলাচের গুণাগুণ সম্পর্কে জানুন। <> https://sonalikantha.com/এলাচের-চমৎকার-গুণাগুণ-সম/


চুল মজবুত করেঃ

চুল মজবুত করতে ব্যাবহার করতে পারেন অ্যালোবেরার রস।আবার চুল পড়া রোধেও অ্যালোভেরা বেশ উপকারী।এটাকে আপনি কন্ডিশনার হিসেবেও ব্যাবহার করতে পারেন।এক কাপ এক কাপ মেহেদি গুড়ার মধ্যে তিন চা্মুচ অ্যালোভেরা মিশিয়ে শ্যাম্পুর মত মাথায় লাগাতে হবে।এরপর এক ঘন্টা পর ধুয়ে ফেলতে হবে।মাসে কয়েকবার এমনভাবে ব্যাবহার করলে চুল মজবুত হবে।খুশকির জ্ন্য তিন চামচ অ্যালোভেরার সঙ্গে কিছুটা কর্‌পুর গুড়া মিশিয়ে চুলের গোড়ায় লাগাতে হবে।আধ ঘন্টা পর হাল্কা গরম পানিতে ধুয়ে ফে্লতে হবে।

ব্রণঃ
অ্যালোভেরার রস ব্রণ,মুখে কালো দাগ এবং অন্যন্য স্কি্ন ডিসেজের জন্য উপকারী।এ রস আপনার শরীরের টক্সিন দূর করে।হজম শক্তি বাড়িয়ে তুলবে,যা আপনার শরীরে রক্ত যোগানো সহ ওজনকে ঠিক রাখতে সাহায্য করে।

হাড় ও মাংসপেশিঃ
অ্যালোভে্রার রস দেহে কোষ গঠনে সাহায্য করে।হাড় ও মাংশপেশীর জোড়া শক্তিশালী করে।প্রতিদিন নিয়ম করে পান করলে কোলেস্টেরোল কমে।

ক্ষতিকর পদার্থ দূরঃ
অ্যালোভেরা বা ঘৃতকুমারী গাছের অবিশ্বাস্য যত গুণ! দেহ থেকে ক্ষতিকর পদার্‌থ অপসারনে অ্যালোভেরা বেশ উপকারী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here