বিশ্বকাপ স্পটলাইটে দশ ক্রিকেটার।

বিশ্বকাপ স্পটলাইটে দশ ক্রিকেটার।
ছবিঃ দশ দলের দশ তুরুপের তাস।


দেখতে দেখতে একদম দরজায় এসে পৌঁছেছে ক্রিকেটের এই বড় আসরটি। দলগুলো অনুশীলনে ঘাম ঝরাচ্ছেন প্রতিনিয়ত। নিজের শ্রেষ্টত্বের লড়াইয়ে ব্যস্ত ১০টি দলের খেলোয়াড়রা। বিশ্বকাপ স্পটলাইটে দশ ক্রিকেটার। এদিকে কোন দলের কোন ই থাকছেন নিজ দলের হয়ে কি-পয়েন্ট সেটার বিশ্লেষণও শুরু করে দিয়েছেন বিশ্লেষকরা। চলুন দেখে নিই কোন দলের কে থাকছেন স্পটলাইট ক্রিকেটার হিসেবে।

বিশ্বকাপ স্পটলাইটে দশ ক্রিকেটার। আর মাত্র ৬ দিন পরেই শুরু হতে যাচ্ছে ক্রিকেটের বড় আসর ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯।

জস বাটলার, ইংল্যান্ডঃ

এবার বিশ্বকাপ ইংল্যান্ডে, আর তাই ইংল্যান্ড এবার বাড়তি সুযোগটা পাবে। সেই সাথে দলের হয়ে ব্যাটিংয়ে আগুন ঝরাবেন জস বাটলার। জস বাটলারের দিনে যেকোন দলের হয়ে ভয়ঙ্কর হয়ে উঠতে পারেন। উইকেট, কন্ডিশন সব মিলিয়ে একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ম্যাচের জন্য জস বাটলার হয়ে উঠতে পারেন দানবীয় চেহারার প্রতিকী হিসেবে। আর তাই ইংল্যান্ডের হয়ে এবারের স্পটলাইট থাকছে জস বাটলারের দিকে।

তামিম ইকবাল, বাংলাদেশঃ

ইতমধ্যেই ত্রিদেশীয় সিরিজ জয়ের তকমাটা দেখিয়েছে বাংলাদেশ। সেখানে তামিমের ব্যাটিং অবদান অনীস্বীকার্য। বাংলাদেশের ওপেনিং ব্যাটিং স্তম্বের প্রধাণ ভরসার নাম তামিম ইকবাল। তামিম যেদিন ব্যাটে ভর করে দাঁড়াতে পারেন সেদিন বাংলাদেশ বড় স্কোরের দিকে এগোয়। বাংলাদেশ পাঁচ সিনিয়র ক্রিকেটারের মধ্যে তামিম হচ্ছেন বটবৃক্ষের ছায়া স্বরুপ। এই বিশ্বকাপে অনেকেই আশা করছেন যে তামিম ৯ ম্যাচে অন্তত ৩টি সেঞ্চুরি হাঁকাবেন। আর তা করতে পারলে তামিম হবেন দেশের হয়ে বিশ্বকাপ এক আসরে সর্বোচ্চ সেঞ্চুরিয়ান। তাই বলা চলে বাংলাদেশের স্পটলাইটে থাকছেন তামিম ইকবাল।

বিরাট কোহলি, ভারতঃ

বিরাট কোহলিকে নিয়ে আসলে কিছু নতুন করে বলার আছে কি-না!

বিরাট ব্যাটসম্যানই হচ্ছেন এই বিরাট কোহলি। ভারতের ব্যাটিং স্তম্বের অন্যতম ভরসার নাম বিরাট কোহলি। বিশ্বকাপে আবার থাকছেন অধিনায়ক হিসেবে। এই ব্যাটিং রাজা স্বাবলীল খেলাটা খেললে বোলারের কোন পাত্তা থাকবে না। অবশ্য আমরা যদি শেষ আইপিএলের দিকে তাকাই তাহলে সেখানে বিরাট কোহলি উল্ল্যেখযোগ্য কোন অবদানই রাখতে পারেননি। তবে ফরম্যাট যেহেতু ভিন্ন সেহেতু বলাই যায় ‘মামা, খেলা হবে’। সুতরাং ভারতের স্পটলাইটে থাকছে বিরাট কোহলি।

আরও পড়ুনঃ ক্রিকেট পাড়ার আলোচনায় ঘাঁসের তৈরী বিশ্বকাপ > http://sonalikantha.com/ক্রিকেট-পাড়ার-আলোচনায়-ঘা/

মিচেল স্টার্ক, অস্ট্রেলিয়াঃ

আসলে কনফিউজড যে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলে ব্যাটিং সাইড নাকি বোলিং সাইড স্পটলাইট হিসেবে ধরা হবে! কারণ যে দলে আছেন ওয়ার্নার, ফিঞ্চ, ওসমান খাজা, স্মিথের মত নক্ষত্র ব্যাটসম্যানরা!! তবে যেহেতু দলে স্টার্ক আছেন সেহেতু ব্যাটিংয়ের চেয়ে বোলিংয়ে মিচেল স্টার্ক ই এগিয়ে থাকবে। বাউন্সিং, গতিময় উইকেট এবং ব্যাটসম্যানকে বুঝে-পড়ে বল করার কারণে মিচেল স্টার্ক এগিয়ে থাকবে কি-পয়েন্ট হিসেবে।

কুইনটন ডি কক, সাউথ আফ্রিকাঃ

আফ্রিকান দলে ব্যাটিংয়ে প্রথম ভরসার নাম ডি কক। ডি ককের দিনে বোলারদের জন্য বাঘ হয়ে উঠতে পারেন। সম্প্রতি ফর্মও ভালো যাচ্ছে ডি ককের। সেক্ষেত্রে আফ্রিকান স্পটলাইট এখন ডি ককের দিকে।

কেন উইলিয়ামসন, নিউ জিল্যান্ডঃ

নিউ জিল্যান্ডের বোলিং-ব্যাটিং বিচারে কেন উইলিয়ামসন আসলেও বোলিংয়ে কিন্তু ট্রেন্ট বোল্ডকে বাদ দেওয়া যায় না। তবে কি-পয়েন্ট হিসেবে উইলিয়ামসনই হবে, কারণ ইংল্যান্ড উইকেট বোলিংয়ের চেয়ে অনেকটা ব্যাটিং সহায়ক হবে। সেক্ষেত্রে টপ অর্ডারে ব্যাটিং তকমা হিসেবে জাত চেনাতে পারেন কেন উইলিয়ামসন।

ত্রিসারা পেরেরা, শ্রীলঙ্কাঃ

শ্রীলঙ্কান দল হিসেবে এবং অভিজ্ঞ ও অলরাউন্ডারের বিচারে ত্রিসারা পেরেরা অন্যসব প্লেয়ার থেকে এগিয়ে থাকবে। ব্যাটিং, বোলিং সাইড বাদেও একজন ফিনিসার হিসেবে ত্রিসারা পেরেরা হিরার টুকরো।

শাই হোপ, উইন্ডিজঃ

উইন্ডিজ ক্রিকেটে কে থাকছে স্পটলাইটে? এমন প্রশ্নে চোখ বন্ধ করে উত্তর আসবে ‘শাই হোপ’। কারণ ইতমধ্যে শাই হোপের ব্যাটিং কারিশমা পুরো বিশ্ববাসী দেখেছে, নিজের দিনে কতটা দানবীয় ব্যাটিং করতে পারেন তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। একদম ঠান্ডা মাথায় বোলারদের তুলোধুনো করতে পারেন এই ব্যাটসম্যান।

বাবর আজম, পাকিস্তানঃ

একসময় পাকিস্তানকে বলা হতো বোলিং রাজার দেশ পাকিস্তান! কিন্তু গত বেশ কয়েকবছর ধরে পাকিন্তান দল ছন্নছাড়া। বোলিংয়ে তো নেই ব্যাটিংয়েও ইনজামাম, ইউনিস, ইউসুফদের পর আর কেউ ধারাবাহিক ব্যাটিংটার হাল ধরতে পারেননি। বর্তমান সময়ে বাবর আজমের স্ট্রাইক রেট এবং ব্যাটিং গড় ভালোর কাতারে পড়ে। তাই উইকেট বিচারে ব্যাটিংয়ের হাল হিসেবে বাবর আজমকে স্পটলাইটে আনা যায়!

রশিদ খান, আফগানিন্তানঃ

আফগান শিবিরের মূল স্পটলাইট ক্রিকেটার হচ্ছেন গুগলি বোলার খ্যাত রশিদ খান। তবে ব্যাটিং সহায়ক উইকেটে রশিদ খান কতটা কার্যকর বোলিং করতে পারবেন সেটা এখন দেখবার বিষয়।

১০ দলের স্পটলাইট ক্রিকেটারে দেখা যাচ্ছে ব্যাটসম্যানের সংখ্যাটাই বেশি! কারণ ইংল্যান্ডের মাঠগুলোতে নরমালি ৩০০+ রান কোন ব্যপার না। আর তাই স্পটলাইট অথবা কি-পয়েন্ট হিসেবে ১০ এর মধ্যে ৮টি দলেই জায়গা ব্যাটসম্যানদের। এখন দেখার পালা ক্রিকেট মাঠের লড়াইয়ে তাঁরা কিভাবে নিজের জাত চেনাতে সক্ষম হন!বিশ্বকাপ স্পটলাইটে দশ ক্রিকেটার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here