মা গেলো ভিক্ষায়,পুড়ে মরলো শিকলে বাধা ছেলে।

ma
ছবিঃ অসহায় মা

মা গেলো ভিক্ষায় পুড়ে মরলো শিকলে বাধা ছেলে। ভিক্ষা করতে যাওয়ার সময় ছেলেকে শিকলে বেধে যান।কিন্তু হঠাৎ্‌ ভিক্ষা থেকে এসে দেখলেন মানসিক ভারসাম্যহীন শিকলে বাধা ছেলে আগুনে পুড়ে মারা গেলেন।

পঞ্চাশোরধ ফাতেমা বেগমের একমাত্র সন্তান রবিউল আজ রোববার এভাবেই মৃত্যুবরন করেন।নগরের চান্দগাও আবাসিক এলাকায় বি ব্লকের ৭ নম্বর রোডে এ ঘটণা ঘটে।আগুনে ৩৬ টি কাচা ঘর পুড়ে যায়।

বেলা ১১ টায় আগুন লাগে।ফাতেমা বিলাপ করতে করতে বলে,”ছেলেকে খাওয়ানোর পর ভিক্ষা করতে গেলাম।এসে দেখি ছেলে পুড়ে ছাই।মাথার সমস্যা থাকায় তাকে বেধে রাখতাম ।ঘরে আর কেউ রইলনা।।এসময় ছারপাশে শোকের ছায়া নেমে আসে।

এই ঘটনায় আশপাশের মানুষ যারা শুনছেন দুঃখ প্রকাশ করছেন।সবাই শান্তনা দিচ্ছেন অসহায় মা’কে।এমন ঘটনায় থেকে সুরক্ষা পেতে সবাই সচেতন হওয়া উচিত বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান।

আরও পড়ুনঃ   https://sonalikantha.com/ফেসবুক-থেকে-আয়-করার-কৌশল

মায়ের কোলে চড়ে প্রতিবন্ধী’র স্বপ্ন জয়।

মায়ের ভালোবাসা উৎসাহ ছাড়া আমাদের উজ্জল ভবিষ্যৎ কল্পনা করা যায়না।মা বাবার হাত ধরেই আমাদের যত স্বপ্ন পূরণের গল্প মা গেলো ভিক্ষায় পুড়ে মরলো শিকলে বাধা ছেলে। ।তেমনি একটি বাস্তব জীবনের মানবতার গল্প মায়ের কোলে চড়ে ভর্তি পরীক্ষা দেওয়া অতঃপর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পেলো প্রতিবন্ধী ছেলে।

পৃথিবীতে সবচেয়ে বিশ্বস্ত ও নিরাপদ গন্তব্যস্থলে যাওয়ার প্রধান ও একমাত্র মাধ্যম মায়ের কোল।প্রতিবন্ধী ছেলের এই ঘটনা তারই স্বাক্ষী।

পৃথিবীতে মায়ের চেয়ে আপন আর কেউ নেই।মায়ের ভালোবাসা,পরিশ্রম,ত্যাগ সন্তানের জন্য সবচেয়ে বড় আশীর্বাদ।একমাত্র মা হচ্ছেন সন্তানের সবচেয়ে আপনজন।পৃথিবীতে বাব,ভাই,বোন,স্ত্রী ভূলে যায় কিন্তু কখনও সন্তান ছেড়ে যায়না।

তেমনি মায়ের ভালোবাসা,মায়ের দায়িত্বের এক উজ্জল দৃষ্টান্ত মিডিয়ার মাধ্যমে আমরা কিছুদিন আগে দেখলাম।

হৃদয় সরকার নামের নেত্রকোনার এক প্রতিবন্ধী ছেলেকে কোলে করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা দিতে নিয়ে আসেন মা।মা গেলো ভিক্ষায় পুড়ে মরলো শিকলে বাধা ছেলে। ব্যাপক আলোচনার জন্ম দেওয়া সেই মায়ের কোলের প্রতিবন্ধী ছেলেটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পেলো।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষার ফলাফলে তিনি ‘খ’ ইউনিট থেকে ৩৭৪০ তম হয়েছেন।

সবার সাথে উন্মুক্ত প্রযোগীতায় উত্তীর্ণ হলেও প্রতিবন্ধী কোটায় ভালো সাবজেক্টে ভর্তির সুযোগ পাবেন হৃদয় সরকার।

সব মায়ের সন্তান সফল হোক হৃদয় সরকারের মত এমনটাই প্রত্যাশা হোক আমাদের সকলের প্রতিবন্ধী বলে কিছুতেই জ্বরে যেতে দেওয়া যাবেনা হৃদয় সরকারের মত মেধাবী সন্তানদের।

দেশ ও জাতির ভবিষ্যৎ গঠনে মেধাবী সুশিক্ষিত সন্তানদের সঠিকভাবে বেড়ে উঠতে সহযোগিতা করতে হবে আমাদের সকলের।মা গেলো ভিক্ষায় পুড়ে মরলো শিকলে বাধা ছেলে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here